মেনু নির্বাচন করুন
গল্প নয় সত্যি

বাহাদুর এবার বিদেশ যাবে

মেঘনা নদীর তীরবর্তী ছোট্ট একটি গ্রাম রসুলপুর। এই গ্রামেই মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে বাহাদুরের বেড়ে ওঠা।দুরন্তপনা েএবং সকল কাজে অংশগ্রহনের জন্য বাহাদুর কৈশোরকাল থেকেই এলাকার মধ্যমণি হয়ে ওঠে।৮ বছর পর । বাহাদুর এখন কলেজে পড়ে। তবে পড়াশোনার চেয়ে বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিতেই তার বেশি ভাল লাগে।বাহাদুর সারাদিন বাইরে আড্ডা শেষ করে বাড়িতে ফিরতে প্রায়ই রাত করে ফেলে।বাবা-মা আর দুই বোনের সংসারে বাহাদুর একমাত্র প্রদীপ। তাকে নিয়ে সবার চিন্ত।বাহাদুর বাবার উপর অভিমান করে শুয়ে থাকে। এমন সময় তার ঘরে বড় বোন  রোজিনা প্রবেশ করে।পরদিন সকালে বাহাদুর কলেজের উদ্দেশ্যে রওনা দিলে এলাকার মোড়ে বেশ লোকজনের ভীড় দেখতে পায়।বাহাদুর যথারীতি ক্লাসের কথা ভুলে কৌতুহল নিয়ে তাদের দিকে এগিয়ে যায়।বাহাদুর ক্লাসের প্রায় শেষ দিকে কলেজে গিয়ে উপস্থিত হয়।ক্লাস শেষ হওয়া পর্যন্ত বাইরে বন্ধুদের জন্য অপেক্ষা করে।রোজ দেরি করে বাড়ী ফিরলেও বাহাদুর আজ জলদি বাড়িতে ফেরে। তার চোখে-মুখে আনন্দের উচ্ছ্বাস ।বাহাদুর মন খারাপ করে এক খালের পাড়ে বসে থাকে।রোজিনার বান্ধবী বিউটি তার বাড়ির জানালা দিয়ে বাহাদুরকে দেখতে পায়।

ছবি/সংযুক্তি


ক্রম


Share with :

Facebook Twitter